জরুরি প্রয়োজনে অনলাইন থেকে জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড সম্ভব! সঠিক প্রক্রিয়া দেখে নিন এই লিঙ্কে গিয়ে https://everify.bdris.gov.bd/

অনলাইন থেকে বার্থ সার্টিফিকেট ডাউনলোড করার সঠিক প্রক্রিয়া জানতে চান? তাহলে আপনাদের সুবিধার জন্য আজকে আমাদের ওয়েবসাইটে বার্থ সার্টিফিকেট এর গুরুত্ব এবং এটি অনলাইন থেকে ডাউনলোড করার প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। সাধারণত একটি শিশু যখন একটি নির্দিষ্ট দেশে জন্মগ্রহণ করে তখন তাকে সে দেশের নিয়ম অনুসরণ করে পরিচয় পত্র প্রদান করা হয়। অর্থাৎ এই শিশু কোথায় জন্মগ্রহণ করেছে এবং এই শিশুর নাম সহ জন্ম তারিখ উল্লেখ পূর্বক একটি সনদে তার পিতামাতার পরিচয় এবং বর্তমান ঠিকানা অস্থায়ী ঠিকানা উল্লেখ পূর্বক জাতীয়তা এবং অন্যান্য তথ্য প্রদান করা হয়ে থাকে।

অর্থাৎ যে সকল তথ্যের মাধ্যমে একজন ব্যক্তিকে নির্দিষ্টভাবে শনাক্ত করা যাবে সে সকল তথ্য সমৃদ্ধ একটি কাগজে এটি সত্যতা প্রমাণ করার জন্য চেয়ারম্যান অথবা স্থানীয় সরকার বিভাগের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা স্বাক্ষর প্রদান করে থাকেন। আপনার নিজের ব্যক্তিগত পরিচয় এর এই তথ্যের তারা যে স্বাক্ষর প্রদান করল এর মাধ্যমেই তারা প্রমাণ করে দিল যে আপনার এই কাগজ সঠিক এবং এই নিয়ম অনুসরণ করার মাধ্যমে প্রত্যেকটি শিশু জন্মগ্রহণ এর পরেই যেন জন্ম নিবন্ধন সনদ পাই তার জন্য বাংলাদেশ সরকার নতুন নিয়ম চালু করে এটি সকলের জন্য বাধ্যতামূলক করে দিয়েছেন।

অতীতে জন্ম নিবন্ধন সনদের গুরুত্ব খুব একটা বেশি না থাকলেও বর্তমান সময়ে আপনারা যদি কোন শিশুকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করাতে চান তাহলে বুঝতে পারবেন এটা গুরুত্ব কতটা অপরিসীম। তাছাড়া কোনো শিশু যখন কোন প্রয়োজনে তার অভিভাবকের সঙ্গে দেশের বাইরে ভ্রমণ করবে তখন তার পাসপোর্ট এবং ভিসা তৈরি করার কাজে জন্ম নিবন্ধন সনদ অবশ্যই লাগবে এবং এটি বাধ্যতামূলক।তাই জন্ম নিবন্ধন সনদের গুরুত্ব আপনাদেরকে বুঝতে হবে এবং জন্ম নিবন্ধন সনদ যদি তৈরি করে থাকেন তাহলে এটা আপনারা আবার অনলাইন থেকে দেখে নিতে পারবেন যে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ এর প্রত্যেকটা তথ্য ঠিক আছে কিনা।

শিশুর জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড https://bdris.gov.bd/br/search এই লিংকে। কিভাবে করবেন বিস্তারিত দেখুন

তাছাড়া অতীতের এনালগ পদ্ধতি বাদ দিয়ে বর্তমান সময়ে ডিজিটাল পদ্ধতি গ্রহণ করা হচ্ছে বলে খুব সহজেই যেকোন তথ্য অনলাইন থেকে সার্চ করার মাধ্যমে খুঁজে পাওয়া সম্ভব হচ্ছে এবং এই নিয়ম অনুসরণ করেই আজকে আপনারা নিজেদের জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য পেয়ে যাবেন। তবে যারা জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করার জন্য এসেছেন তাদেরকে বলব যে স্থানীয় সরকার বিভাগ এটি ডাউনলোড করার এক্তিয়ার রাখেন বলে তারা এটি ডাউনলোড করার কোন ব্যবস্থা রাখেননি এবং সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত নয়।

তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য যদি নিজেদের সংগ্রহে রাখতে চান তাহলে স্ক্রিনশট দিয়ে এটি নিজেদের ডিভাইসে সংরক্ষণ করতে হবে এবং আরেকটি বিষয় রয়েছে যে জন্ম নিবন্ধন সনদ এর চেয়ারম্যান এর স্বাক্ষর ব্যতীত আপনারা সেটা অনলাইন কপি ডাউনলোড করে কোন কাজে ব্যবহার করতে পারবেন না। তবে যাই হোক জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করার জন্য অথবা তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য অথবা তথ্য যাচাই করার জন্য https://everify.bdris.gov.bd/ এই লিঙ্ক এখান থেকে কপি করে নিবেন।

তারপরে অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে কি কি তথ্য প্রদান করতে হবে তা আপনারা বুঝতে পারবেন এবং তারপরও বলে দিয়েছে আপনাদের সেখানে জন্ম নিবন্ধন সনদের নাম্বার এবং জন্মতারিখ প্রদান করে সার্চ অপশনে ক্লিক করা লাগবে। তাহলে পরবর্তী পেজে গিয়ে অরিজিনাল কফের মত জন্ম নিবন্ধন সনদ এর প্রত্যেকটা তথ্য সেখানে লিপিবদ্ধ রয়েছে তা দেখতে পারবেন এবং চাইলে তা সংগ্রহ করতে পারবেন।

bdris.gov.bd 2023: জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করবেন কিভাবে দেখে নিন এখানে

আপনি কি জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে চাইছেন? তাহলে আজকে আমাদের ওয়েবসাইটের এই পোষ্টের মাধ্যমে সঠিক তথ্য জেনে নিন এবং এই পোষ্টের মাধ্যমে দেওয়া সঠিক তথ্য অনুসরণ করে অনলাইন থেকে জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করে নিন। তবে সর্ব প্রথমে আপনাদেরকে আমরা একটি তথ্য প্রদান করতে চাই যে জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করতে হলে অবশ্যই আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের 17 ডিজিটের নাম্বার লাগবে এবং জন্মতারিখ জানা লাগবে।

অনেক মানুষের সাথে যারা জন্ম তারিখ জানলেও 17 ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন সনদের নাম্বার জানে না বলে অনলাইন থেকে জন্ম নিবন্ধনের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারিনা। তবে এই পোস্ট গুলা দেখছেন অথবা পড়ছেন তারা অবশ্যই জন্ম নিবন্ধন সনদের 17 ডিজিটের নাম্বার সংগ্রহ করে তারপরে কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করবেন তা জানতে এই পোস্ট করবেন। জন্ম নিবন্ধন সনদ বর্তমান সময়ে অনলাইনের মাধ্যমে রেজিস্টার হয়ে থাকে।

ডিজিটাল পদ্ধতিতে জন্ম নিবন্ধন সনদ কিভাবে ডাউনলোড করতে হবে দেখে নিন Birth Certificate Online Copy Download 2023

আপনি যদি নতুন জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে অনলাইনের মাধ্যমে সকল কার্যক্রম সম্পাদন করতে হবে এবং নির্দিষ্ট একটি সাল থেকে জন্ম নিবন্ধন এর সকল তথ্য অনলাইনে আপলোড করা হচ্ছে। আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের যদি তথ্য অনলাইনে দিয়ে দেওয়া থাকে তাহলে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য আপনারা সর্বপ্রথমে জন্ম নিবন্ধনের তথ্য অনুসন্ধান লিখে গুগলে সার্চ করুন। আবার আপনারা চাইলে বার্থ সার্টিফিকেট থেকে ইংরেজিতে সার্চ করলে আপনাদের সামনে সর্ব প্রথমে যে ওয়েবসাইট রয়েছে সেখানে প্রবেশ করবেন। সেখানে প্রবেশ করার পর আপনারা দেখতে পারবেন তিনটি ফাঁকা ঘর রয়েছে।

প্রথম করে আপনি অবশ্যই আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের থাকা 17 ডিজিটের নাম্বার বসিয়ে দিবেন এবং পরবর্তী ঘরে গিয়ে আপনার জন্ম তারিখ, জন্ম মাস এবং জন্ম সাল উল্লেখ করবেন। তবে সেই ঘরে আপনারা যখন জন্ম তারিখ বসাতে যাবেন তখন আপনাদের সামনে একটি ক্যালেন্ডার চলে আসবে। সেই ক্যালেন্ডার অনুসারে আপনার সাইটে গিয়ে জন্ম তারিখ এবং জন্ম মাস সঠিকভাবে দিয়ে দেওয়ার পরে ওকে করুন।

জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোডের নিয়ম জানতে এখানে ক্লিক করুন [খুব সহজ উপায় দেখুন]

এরপর আরেকবার এডিট অপশনে গিয়ে আপনারা জন্মসাল সঠিকভাবে বসিয়ে দিন। সর্বশেষ ঘরে আপনারা গণিতের সমাধান করবেন এবং উপরের যে গণিতের ক্যালকুলেশন করতে দেওয়া হয়েছে সেটি সঠিক ভাবে হিসাব করে বের করুন এবং সঠিক উত্তর ফাঁকা ঘরে বসিয়ে দিন। তারপরে আপ্নারা সাবমিট বাটনে ক্লিক করলে আপনার জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বার অনুযায়ী পরবর্তী পেজে সেই নাম্বার ধারী ব্যক্তির তথ্য চলে আসবে।

আপনারা যদি এই কাজটি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে করে থাকেন তাহলে স্ক্রিনশট দেয়া ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। আর যদি কম্পিউটারের মাধ্যমে এই কাজ করে থাকেন তাহলে সেখানে প্রিন্ট কমান্ড এর মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করা সম্ভব। অনেকের কাছে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি এর হার্ডকপি থেকে থাকলেও অনলাইন কপি সংগ্রহ করতে আগ্রহী হয়ে থাকেন।আজকে আমাদের ওয়েবসাইটের এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাদেরকে সঠিক তথ্য প্রদান করা হলো এবং এ সম্পর্কিত কোন তথ্য বুঝতে না পারলে আমাদের ওয়েবসাইটের মন্তব্য বক্সে তা আপনারা জানাতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন কপি ডাউনলোড এর নতুন নিয়ম প্রকাশ। এখানে ক্লিক করে দেখে নিন

জন্ম নিবন্ধন সনদ এর যাবতীয় তথ্য জানার জন্য আপনারা অনলাইনের মাধ্যমে এটি চেক করতে পারবেন এবং অনলাইনের মাধ্যমে যারা ডাউনলোড করার জন্য সঠিক নিয়ম জানতে এসেছেন তারা এই পোস্ট অনুসরণ করবেন। অনেকে মনে করে থাকেন যে জাতীয় পরিচয় পত্রের মাগো জন্ম নিবন্ধন সনদের অনলাইন কবে ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে এবং এর জন্য আপনারা এটি সঠিক নিয়ম জানতে চান বলে আমাদের ওয়েবসাইটে আজকে আপনাদের সঠিক নিয়ম এবং সঠিক ধারণা প্রদান করব।

প্রত্যেকটি বাংলাদেশী নাগরিকের জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরি করতে হবে এবং একজন শিশু জন্ম গ্রহণের পর এটি তৈরি করে নিলে সবচাইতে ভালো হবে। তাই আপনার বাড়িতে যদি একজন শিশু সন্তান জন্মগ্রহণ করে থাকে তাহলে তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হওয়ার অপেক্ষা না করে তার পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরি করে নিয়ে অবশ্যই তার জন্ম নিবন্ধন সনদ এর যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করবেন।

হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল করার নিয়ম ২০২৩

জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় আমাদের ওয়েবসাইটের অন্যান্য পোস্ট দেখতে পারবেন এবং আপনারা যদি মনে করেন জন্ম নিবন্ধন সনদ এর নতুন আবেদন অথবা জন্ম নিবন্ধনের তথ্য সংশোধন করবেন তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটের অন্যান্য পোস্ট থেকেই ধারণা অর্জন করতে পারেন।

তবে যাই হোক আজকে আপনারা জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন থেকে ডাউনলোড করার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করেছেন। কিন্তু এই অফিশিয়াল ওয়েবসাইট এর নিয়ম এবং নীতিমালা অনুসারে এটি কখনোই আপনার ডাউনলোড করতে পারবেন না এবং সর্বোচ্চ আপনারা ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ চেক করতে পারবেন অথবা যাচাই করে নিতে পারবেন।

কারণ জন্ম নিবন্ধন সনদ কার্যকর হওয়ার পিছনে চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর লাগে এবং অনলাইনে চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর প্রদান করা নেই বলে আপনার আইডি ডাউনলোড করে ব্যবহারের যোগ্য করে তুলতে পারবেন না।তাই আপনারা যারা অনলাইন থেকে জন্ম নিবন্ধন সনদের কঁপি ডাউনলোড করতে এসেছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলছি যে আপনার আইডি কখনোই পারবেন না এবং এক্ষেত্রে আপনার ওষুধের স্ক্রিনশট দিয়ে তথ্য যাচাই করে দেখে নিতে পারবেন এবং গ্যালারি তে স্ক্রিনশট দিয়ে সংরক্ষণ করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন বাংলা থেকে ইংরেজি করবেন যেভাবে ২০২৩

তবে জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য যাচাই করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় এবং এর মাধ্যমে আপনি আপনার হাতে থাকা জন্ম নিবন্ধন এর অরিজিনাল কপি সঙ্গে মিলিয়ে দেখতে পারবেন যে এখানে কোন ভুল ত্রুটি রয়েছে কিনা এবং ভদ্র টি থাকলে তথ্য সংশোধন করার উপায় রয়েছে। সেজন্য জন্ম নিবন্ধনের তথ্য যাচাই করার জন্য আপনারা https://everify.bdris.gov.bd/ এই লিংক ব্যবহার করতে পারেন অথবা গুগোল এ গিয়ে আপনারা যদি ইংরেজিতে লিখবা সার্টিফিকেট লিখে সার্চ করেন তাহলে আপনাদের সামনে একেবারে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট এর লিঙ্ক প্রথমে প্রদান করা হবে।

সেখানে প্রবেশ করে আপনার জন্ম নিবন্ধন এর যাবতীয় তথ্য প্রদান করবেন এবং এক্ষেত্রে একজন ব্যক্তি তখনই যাচাই করতে পারবে যখন তার জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরি করে তার হাতে পৌঁছে দেয়া হবে। যারা নতুন আবেদন করেছেন অথবা যারা তথ্য সংক্রান্ত সমস্যায় ভুগছেন তারা অনলাইন থেকে জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য যাচাই করে পাবেন না। তাই আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য অনলাইনে আছে কিনা তা যাচাই করার জন্য জন্ম নিবন্ধন সনদের নাম্বার, জন্ম তারিখ এবং অন্যান্য তথ্য দিয়ে উপরে দেওয়া লিংকে তথ্য ইনপুট করে চেক করে নিন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন: ঘরে বসে কি জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন করা সম্ভব কি? কিভাবে করবেন জেনে নিন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top